টিলা কাটার কুফল সম্পর্কে স্থানীয়দের অবহিত করলেন জুড়ী থানার ওসি জাহাঙ্গীর

সাইফুল ইসলাম সুমনঃ মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলার জায়ফরনগর ইউনিয়নের কালিনগর এলাকায় ৫-৭টি টিলা থেকে প্রতিদিন অবৈধভাবে মাটি কেটে চড়া দামে বিক্রি করছে। রাতের আঁধারে উপজেলার বিভিন্ন নিচু এলাকায় ভিটা ভরাটের কাজে ব্যবহৃত হচ্ছে প্রাকৃতিক টিলার এসব মাটি। সম্প্রতি এ সংক্রান্ত খবর বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশ হলে জুড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন সরদারের নজরকাড়ে। তিনি তৎক্ষনাৎ জুড়ী থানার ওসি তদন্ত আমিনুল ইসলামকে সঙ্গে নিয়ে ছুটে যান অকুস্থলে। সমবেত করেন স্থানীয় বাসিন্দাদের। তাদেরকে বুঝান এই টিলা কাটার কুফল সম্পর্কে। স্থানীয়দের প্রতিশ্রুতি নেন টিলা না কাটার বিষয়ে। এরপর তিনি ঘোষনা করেন আজকের পরথেকে আর কেউ টিলা কাটলে তার বিরোদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। পাহাড়ের গুরুত্ব ও তাৎপর্য অপরিসীম। পাহাড়গুলো পৃথিবীর ভারসাম্য ও স্থিতিশীলতা রক্ষাকারী হিসাবে কাজ করে যাচ্ছে। পাহাড়/টিলা নির্মূল করা হলে ভারসাম্য বিনষ্ট হয়। একে ধ্বংস হতে দেয়া হলে যেভাবে পাহাড় ধসে হতাহতের ঘটনা ঘটছে পরিণতি তার চেয়েও অনেক বেশি মারাত্মক হতে পারে। পাহাড়ের অবস্থান না থাকলে ভূমিকম্পের প্রকোপ বাড়বে জীবন ও সম্পদ বিনষ্ট হবে। তাই প্রকৃতি বা পাহাড়কে প্রাকৃতিকভাবেই থাকতে দিতে হবে। আমরা সবাই চাই, প্রকৃতির অপার দান টিলা ও পাহাড় নিধন বন্ধ করা হোক। টিলা ও পাহাড় ঘেরা আমাদের এ সিলেট অঞ্চল। প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের জন্য এ অঞ্চলগুলোর ব্যাপক সুনাম ও সুখ্যাতি রয়েছে। এক সময় সিলেটে আসতেন শত শত দেশি-বিদেশি পর্যটক যারা সিলেটের সৌন্দর্যের প্রশংসা করে একে শ্রীভূমি উপাধি দিয়েছেন। আমরা আমাদের ঐতিহ্যকে ধরে রাখতে হবে।  

No comments: