জুড়ী উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বদরুল হোসেন; সম্পাদক মাসুক আহমদ

সাইফুল ইসলাম সুমনঃ প্রায় দেড়যুগ পর জুড়ী উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিল সম্পন্ন হয়েছে শনিবার সন্ধ্যায়। কাউন্সিলে সর্বসম্মতিক্রমে উপজেলা আওয়ামীলীগের আহবায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা বদরুল হোসেন’কে সভাপতি এবং উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম আহবায়ক ও ফুলতলা ইউনিয়নের ৫ বারের নির্বাচিত চেয়ারম্যান মাসুক আহমদ’কে সাধারন সম্পাদক পদে মনোনীত করা হয়। আগামী এক মাসের মধ্যে পূর্নাঙ্গ কমিটি প্রকাশ করার ঘোষনা দেয়া হয়। 

শনিবার (১২ অক্টোবর) সন্ধ্যায় শহরের নজরুল ব্যানকোয়িট হলে কাউন্সিলারদের নিয়ে অনুষ্ঠিত জুড়ী উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিলে সভাপতিত্ব করেন মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি নেছার আহমদ এমপি। মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আলহাজ্ব মিছবাহুর রহমান সঞ্চালনায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ এমপি। প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সদস্য ও কমলগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যাপক রফিকুর রহমান, জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের বন, পরিবেশ ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী আলহাজ্ব শাহাব উদ্দিন এমপি।

কাউন্সিল অধিবেশনে সভাপতি পদে দু’জন ও সাধারণ সম্পাদক পদে ৭জন প্রার্থী আলোচনায় ছিলেন। দলীয় সূত্রে জানা যায় ২০০৪ সালের ২৬ আগস্ট জুড়ীকে প্রশাসনিক উপজেলা ঘোষণা করা হয়। একই বছরের ২৮ নভেম্বর আব্দুল খালিক চৌধুরীকে আহ্বায়ক করে ৫১ সদস্য বিশিষ্ট উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক কমিটি অনুমোদন করে জেলা আওয়ামী লীগ। দীর্ঘ ১৫ বছর পর সম্মেলনের মাধ্যমে নেতৃত্ব পেল জুড়ী উপজেলা আওয়ামীলীগ। নবনির্বাচিত সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা বদরুল হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক মাসুক আহমদ খুব শিগগিরই পূর্ণাঙ্গ কমিটি প্রস্তুত করে অনুমোদন জন্য পাঠাবেন বলে জেলা নেতৃবৃন্দ জানিয়েছেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে হানিফ বলেন, মৌলভীবাজারের জুড়ীতে এসে আমি মুগ্ধ হয়েছি। এ উপজেলা বাংলাদেশের জন্য একটি মডেল উপজেলা। এখানে নেতা-কর্মীদের মধ্যে কোনো দ্বিধাদ্বন্দ্ব নেই। 

No comments: