জুড়ীতে আশ্রয় কেন্দ্রে থাকা মানুষের মাঝে প্রশাসনের ত্রাণ বিতরণ

সাইফুল ইসলাম সুমনঃ ঘূর্ণিঝড় ‘ফণি’র প্রভাবে ঘর ছেড়ে নিরাপদ স্থানে আশ্রয় নিতে শুরু করেছে মানুষ। আশ্রয় নেওয়া মানুষের মাঝে উপজেলা প্রশাসন ও ব্যক্তিগত ত্রাণ বিতরণ করা হচ্ছে।  শুক্রবার (৩ মে) বেলা বাড়ার সাথে সাথে ‘ফণি’র প্রভাব বাড়তে থাকে আর জুড়ী উপজেলার জায়ফরনগর ইউনিয়নের ভজিটিলা এলাকার পাহাড় এবং টিলার উপরে ও নিচে বসবাসকারী লোকজন পাহাড় ধ্বসের কবল থেকে রক্ষার জন্য পার্শ্ববর্তী কেবি এহিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় আশ্রয় কেন্দ্রে সাধারণ মানুষ তাদের ঘরবাড়ি ছেড়ে আশ্রয় নিতে শুরু করেছে। ধীরে ধীরে আশ্রয় কেন্দ্রটিতে বাড়তে থাকে মানুষের সংখ্যা। জুড়ী উপজেলা প্রশাসন গত বৃহস্পতিবার থেকে সারা উপজেলায় মানুষকে সচেতন করতে মাইকিং করান।  এদিকে, কেবি এহিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় আশ্রয় কেন্দ্রে এখন পর্যন্ত ৬৩ জন মানুষ আশ্রয় নিয়েছে। শনিবার (৪ মে) রাতে জুড়ী উপজেলা প্রশাসনের পক্ষথেকে কেবি এহিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় আশ্রয় কেন্দ্রে আশ্রয়কৃতদের মধ্যে ত্রাণ সামগ্রী বিতরন করা হয়। উপস্থিত থেকে আশ্রয়কৃতদের মধ্যে ত্রাণ সামগ্রী বিতরন করেন জুড়ী উপজেলা পরিষদের নব-নির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান এম.এ মোঈদ ফারুক, উপজেলা নির্বাহী অফিসার অসীম চন্দ্র বনিক, জুড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন সরদার, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ওমর ফারুক, জায়ফরনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী মাছুম রেজা। 

এদিকে জুড়ী উপজেলা পরিষদের নব-নির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান এম.এ মোঈদ ফারুক, উপজেলা নির্বাহী অফিসার অসীম চন্দ্র বনিক ও জুড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন সরদার বিভিন্ন এলাকায় স্ব-শরীরে হাজির হয়ে খোঁজখবর নিচ্ছেন এবং উপজেলা কন্ট্রোল রুমের মাধ্যমে বিভিন্ন এলাকা থেকে সার্বক্ষনিক মনিটরিং ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। একই সাথে উদ্ধার কর্মীরাও সর্বদা প্রস্তুত থাকতে দেখা গেছে।  


No comments: