জুড়ী শহরে ওসি জাহাঙ্গীর হোসেন সরদারের উদ্যোগে সিসি ক্যামেরা স্থাপন

সাইফুল ইসলাম সুমনঃ মৌলভীজারের জুড়ী উপজেলা শহরের কামিনীগঞ্জ ও ভবানীগঞ্জ বাজারসহ শহরের গুরুত্বপূর্ন স্থানে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করেছেন জুড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর হোসেন সরদার। গত বুধবার সরেজমিনে দেখা যায়, শহরের বিভিন্ন স্থানে সিসি ক্যামেরা স্থাপনের কাজ চলছে। ইতিমধ্যে ৩২টি স্পটে সিসি ক্যামেরা বসানোর কাজ সম্পন্ন করেছে। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, শহরে অনেক দিন থেকে মোটরসাইকেল আরোহিরা সাইকেল স্ট্যান্ড করে শহরে কেনা-কাটা ও প্রয়োজনীয় কাজ সেরে এসে দেখেন তাদের মোটরসাইকেলটি লাপাত্তা! একটি সংঘবদ্ধ চোরাই সিন্ডিকেট শহর থেকে এসব মোটরসাইকেল চুরি করে নিয়ে যেতো। এনিয়ে ভোক্তভোগীরা ছিলো বিড়ম্বনার স্বীকার আর অন্যান্যরা ছিলো উৎকন্ঠিত। তারপর এনিয়ে গণমাধ্যমে রিপোর্ট প্রকাশিত হয়। দাবি উঠে শহরে সিসি ক্যামেরা স্থাপনের। তাৎক্ষনিক জুড়ী থানার ওসি মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর হোসেন সরদার উদ্যোগী হয়ে সমাজের জনপ্রতিনিধি, ব্যবসায়ী, প্রবাসীসহ বিত্তবানদের সহযোগিতা নিয়ে সিসি ক্যামেরা স্থাপনের একটি প্রকল্প হাতে নেন। স্ব-উদ্যোগে সেই প্রকল্পের আওতায় এসব সিসি ক্যামেরা স্থাপন হচ্ছে। সিসি ক্যামেরা স্থাপনের বিষয়টি নিয়ে শহরবাসী খুবই আনন্দিত। জুড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর হোসেন সরদার বলেন, জনগুরুত্বপূর্ণ এ উদ্যোগের ফলে ভবিষ্যতে জুড়ী শহরের যাবতীয় ঘটনায় পুলিশ দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ করতে পারবে। তাছাড়া বড় ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনার ভিডিও ধারণ ও সংরক্ষিত রেখে অপরাধীদের গ্রেফতারে যথেষ্ট ভুমিকা রাখবে উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন সিসি ক্যামেরাগুলো। শহরের পুরো এলাকা জুড়ে সিসি ক্যামেরা স্থাপনের ফলে ছিনতাই, খুন, অনৈতিক কর্মকান্ড, দুর্ঘটনা ও নানা অঘটনের অপরাধের মাত্রা অনেকটাই কমে আসবে। তাছাড়া এলাকাবাসীর সুবিধার্থে বেশ কয়েকটি সিসি ক্যামেরার নিচে জরুরি প্রয়োজনে পুলিশের হেল্পলাইনের নম্বর- ৯৯৯ দেওয়া থাকবে। এছাড়াও ইভটিজিং প্রতিরোধ, মাদককে না বলুন, ময়লা আবর্জনা নির্দ্দিষ্ট স্থানে ফেলুন এমন অনেক ধরনের উক্তি শোভা পাবে সিসি ক্যামেরার নিচের লাগানো স্টিকারে।   

No comments: