জুড়ীতে নিয়োগকৃত শিক্ষকদের এমপিওভুক্ত করনে শিক্ষা অফিসারের ঘুষ বাণিজ্য

বিশেষ প্রতিনিধিঃ মৌলভীবাজারের জুড়ীতে দুটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের (এনটিআরসি) এর মাধ্যমে ৫জন শিক্ষকের এমপিওভুক্ত করনে ঘুষ বানিজ্য করেছে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার (চলতি দায়িত্ব) গোলাম সাদেক। তিনি জুড়ীতে নিয়োগ পাওয়ার পর থেকে সংশ্লিষ্ট বিভাগের বিভিন্ন কাজে অর্থ বানিজ্য করে আসছেন। বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষকদের যেকোন কাজে নানান অজুহাত দেখিয়ে তাদের নিকট থেকে হাতিয়ে নিচ্ছেন লাখ লাখ টাকা। টাকা নাদিলে তিনি কোন প্রয়োজনিয় কাগজ পত্রে স্বাক্ষর করেন না বলে অভিযোগ অনেক ভূক্তভোগী শিক্ষকদের। নাম প্রকাশ না করার শর্তে, একাধিক শিক্ষক অভিযোগ করে জানান, গত ফেব্রুয়ারি মাসের প্রথম সপ্তাহে উপজেলার সাগরনাল উচ্চ বিদ্যালয়ের শরীরচর্চা শিক্ষক জয়নাল আবেদীন, গণিত শিক্ষক আহসান হাবিব ও বাংলা শিক্ষক সাজ্জাদ হোসেন এবং হাজী ইনজাদ আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের বাংলা শিক্ষক সুন্দর আলী ও ইংরেজী শিক্ষক কাকলী সূত্রধর তাদের এমপিওভূক্ত হওয়ার জন্য উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার গোলাম সাদেকের মাধ্যমে ডিজি বরাবর আবেদন করেন। আবেদনের পর তিনি ওই শিক্ষকদেরকে জন প্রতি ১০ হাজার টাকা করে ঘুষ দাবি করেন। নতুবা আবেদনের ফাইল বাতিলের হুমকী প্রদান করেন। শেষ পর্যন্ত নিরুপায় হয়ে শিক্ষকরা স্থানীয় এক শিক্ষক সেলিম আহমদের মাধ্যমে ২৫ হাজার টাকা উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার গোলাম সাদেকের হাতে দেয়া হলে মার্চ মাসে ওই শিক্ষকরা এমপিওভূক্ত হয়। এ ঘটনাটি উপজেলার সর্বত্র ছড়িয়ে পড়লে গত মঙ্গলবার (৯ এপ্রিল) সন্ধ্যায় উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার গোলাম সাদেক তার কার্যালয়ে ওই শিক্ষকদের ডেকে নিয়ে ঘুষের টাকা ফেরত দেন। এ বিষয়ে জানতে চাইলে, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার (চলতি দায়িত্ব) গোলাম সাদেককে তাঁর কার্যালয়ে পাওয়া যায়নি এবং মুঠোফোনে যোগাযোগ করলেও তাঁর মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।## 
জুড়ী উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার গোলাম সাদেকের দুর্নীতি নিয়ে আরো নিউজ আসছে........

No comments: