মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে জুড়ী থানার আয়োজনে কাবাডি প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

সাইফুল ইসলাম সুমনঃ গ্রামবাংলার ঐতিহ্যকে ধরে রাখতে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে মৌলভীবাজারের জুড়ী থানার আয়োজনে অনুষ্ঠিত হয়েছে কাবাডি প্রতিযোগিতা । গত ২০মার্চ জুড়ী সরকারি কলেজ মাঠে বেলা ৩টায় কাবাডি প্রতিযোগিতা-২০১৯ এর শুভ উদ্বোধন করেন মৌলভীবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (কুলাউড়া সার্কেল) আবু ইউসুফ। এসময় উপস্থিত ছিলেন জুড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন সরদার ও জুড়ী থানার ওসি তদন্ত মোঃ আমিনুল ইসলাম। উক্ত কাবাডি প্রতিযোগিতায় উপজেলার ছয় ইউনিয়ন, থানা পুলিশ ও বিভিন্ন সংগঠনের মোট ১২টি দল অংশগ্রহণ করেন। প্রতিদিন বিকেলে দুটি করে চারটি দলের খেলা অনুষ্ঠিত হয়।

গত ২৬মার্চ বিকাল ৪টায় জুড়ী সরকারি কলেজ মাঠে উক্ত কাবাডি প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত খেলা ও পুরস্কার বিতরণ সম্পন্ন হয়। উক্ত ফাইনাল খেলায় জুড়ী থানা পুলিশ বনাম বেলাগাওঁ কন্টিনালা যুব ও সমাজকল্যাণ পরিষদ অংশগ্রহণ করেন। হাড্ডাহাড্ডি লড়াই শেষে ১০-১১ পয়েন্টে জুড়ী থানা পুলিশ কাবাডি দলকে পরাজিত করে জয়লাভ করেন বেলাগাওঁ কন্টিনালা যুব ও সমাজকল্যাণ পরিষদ কাবাডি দল। খেলাটি পরিচালনা করেন বিশিষ্ট ক্রিড়াবিদ কামাল হোসেন মিন্টু ও সাইফুল আলম । শ্রেষ্ঠ খেলোয়াড় নির্বাচিত হন বিজয়ী দলের মহরম আলী।

এদিকে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরন করেন মৌলভীবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (কুলাউড়া সার্কেল) আবু ইউসুফ। এসময় উপস্থিত ছিলেন জুড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন সরদার, জুড়ী থানার ওসি তদন্ত মোঃ আমিনুল ইসলাম, সাবেক ইউপি সদস্য আবু তাহের, বিশিষ্ট সমাজসেবক আব্দুল গণি প্রমূখ। প্রধান অতিথির বক্তব্যে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কুলাউড়া সার্কেল আবু ইউসুফ বলেন, কাবাডি খেলা গ্রামাঞ্চলেও খেলাধুলা অনুষ্ঠিত হওয়ার হার অনেকাংশে কমে গেছে। প্রযুক্তিগত উন্নয়নের সাথে সাথে শারীরিক শ্রমনির্ভর খেলাগুলো কমে গিয়ে মানুষ বর্তমানে প্রযুক্তিগত অনেকগুলো মস্তিষ্কনির্ভর খেলায় মত্ত রয়েছে। এতে করে তারা আত্মকেন্দ্রিক ও সহিংস হচ্ছে। কারণ এসব খেলা বা গেমগুলো সে একাই খেলে এবং খেলা বা গেমগুলো অনেকসময় সহিংসতানির্ভর আধেয় দ্বারা তৈরি। ফলশ্রুতিতে সমাজে আত্মকেন্দ্রিক ও আগ্রাসী মনোভাবে মানুষের সংখ্যা বেড়ে গেছে। এসব প্রযুক্তিগত খেলা আবির্ভাবের সাথে সাথে গ্রাম্য খেলাধুলাগুলোও হারিয়ে যেতে বসেছে। তবে এখনও অনেকে আছেন যারা ঠিকই শারীরিক শ্রমনির্ভর খেলাধুলা করে থাকেন। এরকমই আমরা একটি উদ্যোগ গ্রহন করেছি। এছাড়া গ্রামবাংলার ঐতিহ্যকে ধরে রাখতে কাবাডি খেলা অব্যাহত রাখার জন্য আমাদের সেন্ট্রালী নির্দেশনা রয়েছে।

সভাপতির বক্তব্যে জুড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন সরদার বলেন, খেলাধুলা মানুষের দেহ সুস্থ রাখে এবং মনকে রাখে চাঙ্গা। আর মাদক মানুষের বোধশক্তি কেড়ে নেয়। নিজের ওপর নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে মাদকসেবীরা। মাদকের প্রভাবে মানুষ জড়িয়ে পড়ে অপরাধের সঙ্গে। তাই নিজেকে সুস্থ রাখতে চাইলে মাদক ব্যবসা ও সেবন ছাড়তে হবে। স্বাস্থ্যই সব সুখের মূল। স্বাস্থ্য ভালো না থাকলে শরীর ও মন ভালো থাকে না। এজন্য সুস্থ জীবনযাপন করতে চাইলে খেলাধুলায় মন বসাতে হবে। 


No comments: