জুড়ীতে কথিত নিষ্পাপ শিশু জামিনে মুক্ত

বিশেষ প্রতিনিধিঃ গত ১৮ মার্চ অনুষ্ঠিত জুড়ী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী ছিলেন তিন জন । তন্মধ্যে নির্বাচনী মাঠের অন্যতম আকর্ষণ দেবর ভাবীর প্রতিদ্বন্দ্বিতা । তবে ভোটে ভাবীকে হারিয়ে জয়ী হন দেবর । এদিকে নির্বাচনী প্রচারণা চলাকালীন সময়ে দেবর একাত্তরের রনাঙ্গণের অকুতোভয় সেনানী এম.এ মোঈদ ফারুকের দুই সহোদরসহ অজ্ঞাতনামা ৪০/৫০ জনকে আসামী করে ভাবী সদ্য সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান গুলশান আরা মিলির একমাত্র পুত্র সায়েম বাদী হয়ে জুড়ী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন । নির্বাচনী ঘটনাকে কেন্দ্র করে বাদীসহ তিনজন গুরুতর জখম হন মর্মে দায়েরকৃত মামলার এজাহারভুক্ত অন্যতম আসামী উত্তর ভবানীপুর নিবাসী গিয়াস উদ্দিন ওরফে কথিত নিষ্পাপ কালা শিশুকে ভবানীগঞ্জ বাজারের কদমতলার অনতিদুরে এস.আই কামরুজ্জামানের নেতৃত্বে একদল চৌকস পুলিশ গ্রেফতার করেন । নির্বাচনের জমজমাট মূহুর্তে আনারস মার্কার নিবেদিত প্রান কর্মী কথিত নিষ্পাপ কালা শিশু গ্রেফতার হওয়াতে ভাবীর পক্ষ কোন প্রতিক্রিয়া না জানালেও দেবরের কর্মী ও অনুসারীরা তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন করেন । অপরদিকে ২০ মার্চ জামিনে বেরিয়ে আসেন গিয়াস উদ্দিন ওরফে কথিত নিষ্পাপ কালা শিশু । জামিনে মুক্তি পেয়ে জুড়ীতে আসার পর জুড়ী নিউমার্কেট সম্মুখে নিষ্পাপ শিশুকে এম.এ মোঈদ ফারুক তথা আনারস মার্কার সমর্থকরা তাকে এক ফুলেল সংবর্ধনা প্রদান করেন । সংবর্ধনায় বক্তারা বলেন, মিথ্যা মামলায় আমাদের  নিষ্পাপ শিশু ভাইকে জেল খাটতে হয়েছে । এটা আমাদের জন্য অত্যান্ত দুঃখজনক । তবে সকল জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে আনারসের বিজয় ও নিষ্পাপ শিশু ভাইয়ের জামিনে মুক্তিতে আমরা আনন্দিত ।

No comments: