জুড়ীতে প্রচারণা শেষে বাড়ী ফেরার পথে যুবলীগ নেতা আহমদ কামাল অহিদের উপর ককটেল হামলা

জুড়ী টাইমস সংবাদঃ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রচারণা শেষে বাড়ী ফেরার পথে যুবলীগ নেতা আহমদ কামাল অহিদের উপর ককটেল হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এই হামলা বিএনপি-জামাত জোটের সন্ত্রাসীরাই করেছে বলে জানান আহমদ কামাল অহিদ। এ বিষয়ে জুড়ী থানায় উপজেলা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি ও জায়ফরনগর ইউপি চেয়ারম্যান হাজী মাছুম রেজাকে প্রধান আসামী করে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। রাতেই জুড়ী থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে প্রধান আসামী হাজী মাছুম রেজাসহ ৩ জনকে আটক করেছে।    
 
স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, মৌলভীবাজার-১ (জুড়ী ও বড়লেখা) আসন থেকে আওয়ামীলীগের নৌকা মার্কার প্রার্থী হুইপ আলহাজ্ব শাহাব উদ্দিনের নির্বাচনী প্রচারণা শেষে মঙ্গলবার ১৮ ডিসেম্বর রাত সাড়ে ৮ টায় জুড়ী বাজার থেকে বাড়ী ফেরার পথে বিএনপি নেতা হাজী মাছুম রেজার ব্যাক্তিগত অফিসের সামনে পৌছালে পূর্ব থেকে ওৎ পেতে থাকা একদল লোক তাকে লক্ষ্য করে অতর্কিত ভাবে ককটেল বিস্ফোরন ঘটায়। মূহুর্তে আহমদ কামাল অহিদসহ তার সঙ্গিরা মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। এসময় তার ব্যবহৃত মোটরসাইকেলটি পুড়িয়ে দেয় দূর্বিত্তরা। সাথে সাথে আশ-পাশের লোকজন তাকে উদ্ধার করে কুলাউড়া স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে নিয়ে চিকিৎসা প্রদান করে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে জুড়ী থানা পুলিশ। এসময় বিস্ফোরিত  ৬/৭ টি ককটেল উদ্ধার করা হয়। এ বিষয়ে রাতেই জুড়ী থানায় একটি মামলা (নং-০৭, তাং-১৮/১২/১৮) দায়ের করা হলে জুড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন সরদার ও ওসি তদন্ত আমিনুল ইসলামের নেতৃত্তে একদল পুলিশ রাত ৩ টায় অভিযান চালিয়ে এজাহার নামীয় প্রধান আসামী হাজী মাছুম রেজাসহ উপজেলার ফুলতলা ইউনিয়নের রাজকী-এলবিনটিলা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল গফুর সেলিম ও জায়ফরনগর ইউনিয়নের জাহাঙ্গীরাই গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে রেজাউল করিম রাজুকে আটক করা হয়। পরদিন বুধবার ১৯ ডিসেম্বর সকালে আসামীদের আদালতে প্রেরন করা হয়।

No comments: