জুড়ীতে বিল বোর্ড অপসারণ করলেন সহকারি রিটার্নিং অফিসার অসীম চন্দ্র বনিক

সাইফুল ইসলাম সুমনঃ মৌলভীবাজারের জুড়ীতে সকল রাজনৈতিক দলের বিল বোর্ড অপসারণ করলেন সহকারি রিটার্নিং অফিসার ও জুড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অসীম চন্দ্র বনিক। 

জাতীয় নির্বাচেনর প্রায় দেড়মাস বাকি। ইতোমধ্যে সম্ভাব্য এমপি প্রার্থীদের পোস্টার-ফেস্টুনে সয়লাব সারা দেশ। নির্বাচনী তফসিল ঘোষণার অনেক আগে থেকেই দেশের প্রায় সর্বত্র সম্ভাব্য প্রার্থীর সমর্থনে টাঙানো হয়েছে এসব সুদৃশ্য রঙিন পোস্টার, ব্যানার ও ফেস্টুন। নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর এসব ছবি অপসারণ করার কথা ছিল। নির্বাচন কমিশন (ইসি) এ বিষয়ে প্রজ্ঞাপনও জারি করেছে। কিন্তু প্রজ্ঞাপন বাস্তবায়নে কার্যকর উদ্যোগ নেয়নি ইসি। নিজস্ব লোকবল না থাকায় তাদের নির্ভর করতে হয় সংশ্লিষ্ট রিটার্নিং বা সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও প্রশাসনের ওপর। সে কারণে সব সময় ‘কুইক অ্যাকশনে’ যাওয়া সম্ভব হয় না বলে জানিয়েছে কমিশন।

তবে এর ভিন্ন চিত্র দেখা গেছে মৌলভীবাজার জেলার জুড়ী উপজেলায়। শনিবার (১৭ নভেম্বর) দুপুরে হঠাৎ গাড়ী নিয়ে শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে হাজির হন সহকারি রিটার্নিং অফিসার ও জুড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অসীম চন্দ্র বনিক। তিনি তাৎক্ষনিক ওইসব বিল বোর্ড অপসারণের নির্দেশ দেন। সাথে সাথেই তার সাথে থাকা কর্মীরা এসব বিল বোর্ডগুলো নামিয়ে ফেলেন। এসময় হতচকিত মানুষ ও পথচারীরা এ দৃশ্য অবলোকন করতে ভিড় জমান।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে সহকারি রিটার্নিং অফিসার ও জুড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অসীম চন্দ্র বনিক বলেন, নির্বাচন কমিশনের নির্দেশ অনুযায়ী অবাধ, সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের লক্ষে যা যা করা দরকার তা সবই করা হবে। এরই অংশ হিসেবে এই বিল বোর্ডগুলো অপসারণ করা হলো। 

No comments: