কানাডার টরেন্টোয় শুরু হলো দুইদিন ব্যাপি ৪র্থ বিশ্ব সিলেট সম্মেলন

সাইফুল ইসলাম সুমনঃ কানাডার স্থানীয় তারিখ হিসাবে আজ শনিবার টরোন্টোয় শুরু হচ্ছে দুইদিন ব্যাপি ৪র্থ বিশ্ব সিলেট সম্মেলন। ইতিমধ্যে এর যাবতীয় প্রস্ততি সম্পন্ন হয়েছে। ইতিমধ্যে ভারত, বাংলাদেশ, জার্মানী, ইংল্যান্ড আমেরিকাসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে অতিথিরা এই সম্মেলনে অংশ নিতে কানাডার টরেন্টোতে উপস্থিত হয়েছেন। ভারত থেকে এই সম্মেলনে অংশ নিচ্ছেন গুয়াহাটি বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের ডিন অমলেন্দু চক্রবর্তী, যুগশঙ্খ পত্রিকা পরিবারে পক্ষ থেকে সিইও গৌরব নাথ।

টরেন্টো শহরে সম্মেলনস্থল গ্র্যান্ড প্যালেস এর চত্বরে স্থাপন করা হয়েছে সিলেটের আইকন বলে পরিচিতি সুরমা নদীর তীরে অবস্থিত আলি আমজদের ঘড়ির রেপ্লিকা। ইতিমধ্যে এই সম্লেলন উপলক্ষে “শীতলপাটি” নামে একটি নান্দনিক স্যুভেনীর প্রকাশিত হয়েছে।  টরেন্টোতে এখন টক অব দ্য সিটি ‘বিশ্ব সিলেট সম্মেলন’। সিলেটি ছাড়াও বাংলাদেশের অন্যান্য জেলার মানুষ ও পশ্চিমবঙ্গের প্রবাসী বাঙালিদের মধ্যেও ব্যাপক আগ্রহ দেখা দিয়েছে এই সম্মেলনকে ঘিরে। জালালাবাদ এসোসিয়েশন ঢাকার সভাপতি সিএম তোফায়েল সামী সম্মেলনের অগ্রগতি এবং সিলেটিদের উৎসাহ উদ্দীপনা দেখে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। শুক্রবার এই বিশ্ব সম্মেলনকে সফল করার আহ্বান জানিয়ে টরেন্টোতে একটি পদযাত্রা অনুষ্ঠিত করেন প্রবাসী সিলেটিরা। 
 
এ মহা সম্মেলনের কনভেনর বাংলাদেশ সরকারের প্রাক্তণ উপদেষ্টা রাশেদা কে চৌধুরি উত্তর আমেরিকায় বসবাসরত সকল সিলেটবাসীকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। তাঁকে বিভিন্ন ভাবে সহযোগিতা করার জন্য তিনি জালালাবাদ এসোসিয়েশন অব টরন্টোর কর্মকর্তা, ব্যবসায়ী এবং পৃষ্ঠপোষকদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন। সম্মেলনে প্রচুর লোক সমাগম হবে বলে আশা করে তিনি বলেন,‘ এ সম্মেলনটি যেন এবার বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে বসবাসরত সিলেটিদের কাছে একটি মাইল ফলক হিসেবে চিহ্নিত হয়।’
 
আমেরিকার নিউইর্য়কে গতবছরে অনুষ্টিত ৩য় বিশ্ব সিলেট সম্মেলনের কনভেনর ডা. জিয়া উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘এবারের সম্মেলনে সবাই যেভাবে আন্তরিকতার সাথে কাজ করছেন তাতে সম্মেলন অবশ্যই সফল হবে।’
 
জালালাবাদ এসোসিয়েশন অব টরন্টোর সভাপতি দেবব্রত দে তমাল বলেন,‘ ভারতের দক্ষিণ কলকাতা সিলেট এসোসিয়েশন সিলেটি সম্মেলন শুরু করে অভূতপূর্ব এক সাড়া জাগিয়েছে। ঢাকা জালালাবাদ এসোসিয়েশন কর্তৃক বাংলাদেশের ঢাকায় ও সিলেটেও সুন্দর ভাবে তার পুনরাবৃত্তি ঘটেছে। এই ধারাবাহিকতাকে সম্মান জানিয়ে সিলেট থেকে অনেক দূরে থেকেও বিশ্বের বিভিন্ন দেশে যারা সিলেটি ঐতিহ্য ও ভালোবাসাকে জাগিয়ে রেখেছেন তাদের জন্য সবচেয়ে প্রয়োজন একটা মিলন মেলার শুভ আয়োজন।’

No comments: