ফুলেল শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় সিক্ত : চির নিদ্রায় গোলাম সারওয়ার

জুড়ী টাইমস সবাদঃ একাত্তরের রণাঙ্গনের মুক্তিযোদ্ধা, একুশে পদকপ্রাপ্ত সাংবাদিক ও দৈনিক সমকাল-এর সম্পাদক গোলাম সারওয়ার রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় সমাহিত হলেন। গতকাল বৃহস্পতিবার আসরের নামাজের পর রাজধানীর মিরপুরের শহিদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে যথাযথ ধর্মীয় মর্যাদায় তার দাফন সম্পন্ন হয়।
এর আগে সকাল সাড়ে ৮টার দিকে গোলাম সারওয়ারকে শেষবারের মতো তেজগাঁওয়ে তার প্রিয় কর্মস্থল সমকাল কার্যালয়ে নেয়া হয়। সেখানে সমকাল পরিবারের সদস্যরা প্রিয় অভিভাবককে শেষ শ্রদ্ধা জানান। সকাল সোয়া ৯টার দিকে সমকাল কার্যালয় সংলগ্ন বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়ের ওসমানী হল মাঠে গোলাম সারওয়ারের তৃতীয় নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।
সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য সকাল পৌনে ১১টার দিকে লাশবাহী অ্যাম্বুলেন্সে তার মরদেহ কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে নেয়া হয়। সেখানে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের ব্যবস্থাপনায় জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, খাদ্যমন্ত্রী এডভোকেট কামরুল ইসলাম, সংস্কৃতিবিষয়কমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, র‌্যাব মহাপরিচালক বেনজির আহমেদ, বেসরকারি সংগঠন ‘নিজেরা করি’র খুশী কবিরসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ বরেণ্য এই সাংবাদিককে শেষ শ্রদ্ধা জানান।
ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, তার মৃত্যুতে জাতি সাংবাদিকতা জগতের অগ্রদূতকে হারাল। তিনি সংবাদমাধ্যমের এক নিবেদিতপ্রাণ ব্যক্তিত্ব ছিলেন। আজীবন সাংবাদিকতা জগতের অনুপ্রেরণার উৎস হয়ে থাকবেন গোলাম সারওয়ার।
শহিদ মিনার থেকে দুপুর পৌনে ১টায় মরদেহ নেয়া হয় তার পাঁচ দশকের আড্ডাস্থল জাতীয় প্রেসক্লাবে। এ সময় উপস্থিত সাংবাদিকদের মধ্যে শোকের ছায়া নেমে আসে। কালো কাপড়ে নির্মিত মঞ্চে কফিন রাখার পর প্রবীণ-নবীন সাংবাদিকরা তার প্রতি শেষ শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। রাষ্ট্রপতির পক্ষ থেকে তার সামরিক সচিব মেজর জেনারেল মো. সারোয়ার হোসেন এবং প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে তার তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, প্রেস সচিব ইহসানুল করীম ও উপ-তথ্য সচিব আশরাফুল আলম খোকন কফিনে পুষ্পমাল্য অর্পণ করে শ্রদ্ধা জানান। এরপর ঢাকা জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে পুলিশের একটি চৌকস দল জাতীয় পতাকা দিয়ে কফিন ঢেকে তাকে রাষ্ট্রীয় সালাম জানায়। জোহরের নামাজের পর প্রেসক্লাব চত্বরে তার চতুর্থ নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। কফিনে শ্রদ্ধা জানিয়ে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ নোমান বলেন, সারোয়ার ভাই একজন মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন। একই সঙ্গে তিনি ছিলেন একজন প্রতিথযশা সাংবাদিক। অনেক গুণাবলি তাকে শ্রেষ্ঠ মানুষের কাছে নিয়ে গেছে। আমি তার মৃত্যুতে গভীর শোকপ্রকাশ করছি।
সাংবাদিক রিয়াজউদ্দিন আহমেদ বলেন, তিনি আমার সহকর্মী ছিলেন। দীর্ঘদিন আমরা একসঙ্গে কাজ করেছি। সাংবাদিকদের নানা সমস্যা এবং জাতীয় প্রেসক্লাবের বিভিন্ন সংকটের সময়ে সমাধানে তার যে উদ্যোগ স্মরণীয়।
ডেইলি স্টারের সম্পাদক ও সম্পাদক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মাহফুজ আনাম বলেন, সম্পাদক পরিষদের পক্ষ থেকে আমি তার মৃত্যুতে গভীর শোকপ্রকাশ করছি। এই সংগঠনের গঠনে তিনি অন্যতম উদ্যোক্তা ছিলেন।
এ ছাড়া প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম, তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম, একুশে টিভির সিইও মনজুরুল আহসান বুলবুল, সমকালের প্রকাশক এ কে আজাদ, সমকালের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মোস্তাফিজ শফি, প্রয়াত সম্পাদক গোলাম সারোয়ারের জ্যেষ্ঠ ছেলে গোলাম শাহরিয়ার রঞ্জন, জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি মুহাম্মদ শফিকুর রহমান, সহসভাপতি সাইফুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমীন, ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের একাংশের সভাপতি মোল্লা জালাল মরহুমের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন।
তার নামাজে জানাজায় অংশ নেন বিএনপির সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, আবদুস সালাম আজাদ, লেবার পার্টির মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক সৈয়দ কামালউদ্দিন, শাহজাহান মিয়া, হাসান শাহরিয়ার, আবুল কালাম আজাদ, মতিউর রহমান চৌধুরী, নঈম নিজাম, শাহ আলমগীর, কামরুল ইসলাম চৌধুরী, বিএফইউজের দুই অংশের রুহুল আমিন গাজী, এম আবদুল্লাহ, মোল্লা জালাল, শাবান মাহমুদ, ডিইউজের দুই অংশের আবু জাফর সূর্য, সোহেল হায়দার চৌধুরী, কাদের গনি চৌধুরী, শহিদুল ইসলাম, ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাইফুল ইসলাম, শুকুর আলী শুভ, ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের গোলাম মুস্তফা, কাজল হাজরা, ইআরএফের সাইফ ইসলাম দিলাল, রাশেদুল ইসলাম, জাতীয় প্রেসক্লাবের আজিজুল ইসলাম ভুঁইয়া, সাহেদ চৌধুরী, ইলিয়াস খান, মাইনুল আলম, পিআইআরএফের আছাদুজ্জামান, আতাউর রহমানসহ কয়েকশ সাংবাদিক, রাজনীতিবিদ ও পেশাজীবী।
এসময় দৈনিক ভোরের কাগজের সম্পাদক শ্যামল দত্ত, জাতীয় প্রেসক্লাবের কোষাধ্যক্ষ কার্তিক চ্যাটার্জি, সাবেক সাধারণ সম্পাদক স্বপন সাহা, জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক মনোজ কান্তি রায় উপস্থিত ছিলেন।
গত ১৩ আগস্ট সোমবার বাংলাদেশ সময় রাত ৯টা ২৫ মিনিটে সিঙ্গাপুরের জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান গোলাম সারওয়ার। বর্ণাঢ্য কর্মজীবনে দীর্ঘ ২৭ বছর তিনি দৈনিক ইত্তেফাকের বার্তা সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন। পরে সম্পাদক হিসেবে তার হাতেই আত্মপ্রকাশ করে দৈনিক যুগান্তর ও সমকাল।

No comments: