আন্দোলনকারী ছাত্রীদের ‘ধর্ষণের’ হুমকি দিয়েছেন সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি

কোটা সংস্কার ছাত্রীদের নিয়ে ছাত্রলীগ নেতার বিতর্কিত স্ট্যাটাসফের আলোচনায় সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি হিরণ মাহমুদ নিপু। ফেসবুকে তার দেয়া একটি স্ট্যাটাসকে কেন্দ্র করে তোলপাড় চলছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের দাবি, স্ট্যাটাসে তিনি আন্দোলনকারী ছাত্রীদের ‘ধর্ষণের’ হুমকি দিয়েছেন।
তবে অভিযোগ অস্বীকার করে সাবেক এই ছাত্রলীগ নেতার দাবি, স্ট্যাটাসে বাস্তবতা তুলে ধরা হয়েছে। কথিত আন্দোলনকারীদের অভিভাবকদের সচেতন করতেই এ স্ট্যাটাস দিয়েছেন তিনি।
শনিবার সন্ধ্যা ৬ টার ১১ মিনিটে দেয়া হিরণ মাহমুদ নিপু ফেসবুক স্ট্যাটাস ছিল-
‘সিলেট কোটা নামে জটলা বেঁধে সরকার বিরোধী আন্দোলন করার চেষ্টা না করার জন্য করজোড়ে অনুরোধ করছি। উস্কানিমূলক আনন্দোলনের ফাজলামি বরদাস্ত করব না। ঘরে বসে বিশ্বকাপ খেলা দেখেন অথবা নৌকা সমর্থনে ক্যাম্পেইন করেন। আন্দোলনের জড়িত ছাত্রদের অভিভাবকরা একটু লক্ষ্য রাখুন আপনার ছেলে মেয়ে কি করছে। আন্দোলনের নামে ঘর থেকে বেরিয়ে সহপাঠীর সাথে বেপরোয়া চলাফেরা করছে, ড্যাটিং করছে। সাংবাদিক সম্মেলন করে নিজের মেয়ের মানসম্মান নষ্ট করার মত ধর্ষণের মত অভিযোগ করার আগে এখনই সচেতন হোন।’
এই স্ট্যাটাসের কমেন্টে এসে ক্ষোভে ফেটে পড়েন কোটা সংস্কার আন্দোলনের সমর্থকসহ অনেকে। তারা এ ধরনের বক্তব্যকে আন্দোলনরত ছাত্রীদের ‘ধর্ষণের হুমকি’ বলে অভিহিত করেন।


জানতে চাইলে সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি নিপু পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, প্রধানমন্ত্রী যেখানে দায়িত্ব নিয়েছেন, সেখানে আন্দোলনের আর কিছু থাকতে পারে না। তারপরও যারা কথিত আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে, তাদের অভিভাবকদের সচেতন করতে এ স্ট্যাটাস দিয়েছি। সারাদিন ধরে কথিত মেধাবীদের গালিগালাজ শুনতে হচ্ছে।
উল্লেখ্য, সিলেটের ছাত্র রাজনীতিতে বার বার বিতর্কিত হন জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি হিরণ মাহমুদ নিপু। ২০১৩ সালের ১৫ অক্টোবর সিলেট নগরীর কোর্ট পয়েন্টে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) ও বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দলের (বাসদ) বিভাগীয় সমাবেশে তার নেতৃত্বে ছাত্রলীগের হামলার ঘটনা দেশজুড়ে আলোচিত হয়।

ওই হামলায় সিপিবি সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিমসহ ১৫ জন আহত হন। ওই ঘটনার রেশ ধরেই হিরণ মাহমুদ নিপুর নেতৃত্বধীন তৎকালীন সিলেট জেলা ছাত্রলীগের কমিটি স্থগিত করে কেন্দ্র।
এছাড়া নিজ প্রতিষ্ঠানের নামে কাজ না পেয়ে হিরণ মাহমুদ নিপু সিলেট শিক্ষা প্রকৌশল অধিদফতরের প্রকৌশলী নজরুল হাকিমকে হত্যারও হুমকি দেন। এ ঘটনায় ওই প্রকৌশলী থানায় একটি জিডি করেন। এছাড়া গ্রুপিং দ্বন্দ্বে হিরণ মাহমুদ নিপুর নাম বার বার ফিরে আসে।
Source: poriborton

No comments: