হাকালুকি হাওরে ধান কাটা উৎসব

সাইফুল ইসলাম সুমনঃ মাঠজুড়ে সোনালি ধান। কেউ কাটছেন, কেউ আঁটি বাঁধছেন। কেউ কেউ ভার করা ধান নিয়ে যাচ্ছেন বাড়ির উঠোনে। দম ফেলার ফুরসত নেই। মহাব্যস্ততায় দিন কাটছে কৃষকদের। বোরো ধান কাটা নিয়ে এমন চিত্র দেখা গেছে হাকালুকি হাওর অঞ্চলে। মাঠে মাঠে যেন শুরু হয়েছে ধান কাটা উৎসব। এদিকে মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলায় বেলাগাওঁ গ্রামের হাকালুকি হাওর পাড়ে ‘ধান কাটা উৎসব’ করেছে জুড়ী উপজেলা কৃষি বিভাগ । 

মঙ্গলবার (১৭ এপ্রিল)  বিকেলে অনুষ্ঠিত হয় এই ব্যতিক্রমধর্মী অনুষ্ঠান। মাথায় গামছা বেঁধে হাতে কাস্তে নিয়ে জুড়ী উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, শিক্ষক, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, কৃষক সংগঠক এবং স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ এ ধান কাটা উৎসবে অংশগ্রহণ করে। উপজেলা কৃষি বিভাগ সূত্রে জানা যায়, এবছর উপজেলার ১৩ হাজার ৫৩৫ একর জমিতে বি-২৮, বিআর-১৪ ও বিআর-২৯ জাতের বোরো ধানের আবাদ হয়েছে। এর মধ্যে অধিকাংশ জমি পড়েছে হাকালুকি হাওরে। গত বছর অতিবৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে হাওরের সব ফসল তলিয়ে নষ্ট হয়ে গিয়েছিল। কৃষকেরা একমুঠো ধানও ঘরে তুলতে পারেননি।

ইউপি সদস্য জমির আলী বলেন, আজ হাকালুকি হাওর পাড়ে ধান কাটা উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে । এই অনুষ্ঠান কৃষক ও প্রশাসনের মধ্যে সম্পর্ক সুদৃঢ় করতে অনেক ভূমিকা রাখবে। কৃষকরা যাতে করে সকল ফসল সুন্দর ভাবে ঘরে তুলতে পারে আমি সেই কামনাই করি।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা দেবল সরকার বলেন, গত বছর হাওরের ফসল রক্ষা করা সম্ভব হয়নি। ঠিক এ সময়টাতে ফসলহারা মানুষের কাছে আমরা ত্রাণ নিয়ে ছুটে গিয়েছিলাম। মানুষের আহাজারিতে ভারী হয়ে উঠেছিল হাওর এলাকা। এবার ফসল ভালো হয়েছে। তাই আমরা এই আয়োজন করেছি।  

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অসীম চন্দ্র বণিক বলেন, কৃষকেরাই বাংলার প্রাণ। আমরা বেশির ভাগই কৃষক পরিবারের সন্তান। এবছর ফসল ভালো হওয়ায় হাওর এলাকার কৃষকদের মুখে হাসি ফুটেছে। এই হাসি ছড়িয়ে পড়ুক সারা দেশে, এমনটাই আমাদের প্রত্যাশা।

No comments: