জুড়ীর ইউএনও অসীম চন্দ্র বনিকের ব্যাতিক্রমী একুশের আয়োজন

জুড়ী টাইমস সংবাদঃ মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অসীম চন্দ্র বনিকের ব্যাক্তিগত উদ্যোগে একুশের এক ব্যাতিক্রমী কুইজ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। বুধবার দুপুরে উপজেলা মিলনায়তনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে উপস্থিত শিক্ষার্থী, শিক্ষক-শিক্ষিকা, অভিভাবক, বিভিন্ন রাজনৈতিক-সামাজিক-সাংস্কৃতিক ব্যাক্তিবর্গের মধ্যে একুশের চেতনাকে ছড়িয়ে দেয়ার লক্ষ্যে ব্যাতিক্রমী এই কুইজ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। এতে মহান একুশের সাথে সম্পর্কিত বিভিন্ন প্রশ্ন করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অসীম চন্দ্র বনিক। আর প্রশ্ন-উত্তরে উপস্থিত সকলেই অংশগ্রহন করেন। পরে সঠিক উত্তর দাতাদের হাতে পুরস্কার তুলেদেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অসীম চন্দ্র বনিক।

এদিকে মিলনায়তনে উপস্থিত সুধিজনরা ব্যাতিক্রমী এ উদ্যোগের ভূয়সী প্রশংসা করেন। এবিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অসীম চন্দ্র বনিক বলেন, একুশ সম্পর্কে নতুন প্রজন্মকে ধারনা দেয়ার উদ্দেশ্যেই আমার এই আয়োজন। আমরা শুধু দিবস পালন করলেই হবেনা। দিবসটির চেতনা সকল মানুষের মাঝে ছড়িয়ে দিতে হবে। আর মানুষ এই চেতনা ধারন করে নিজেদের আত্ম সম্মানবোধ ও গৌরব নিয়ে এগিয়ে যাবে। তাহলেই দিবস পালনের স্বার্থকতা আসবে। উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার কুলেশ চন্দ্র চন্দ বলেন, মুক্তিযোদ্ধ-স্বাধীনতা-দেশ-মাটি সম্পর্কে আমাদের বর্তমান প্রজন্ম অনেকটাই উদাসীন। আর এই সময়ে এমন আয়োজন অনেক গুরুত্ব বহন করে। জুড়ী টাইমস এর সম্পাদক-প্রকাশক সাইফুল ইসলাম সুমন বলেন, প্রতি বছর একুশ এলে আমরা শুধু দিবসটি ঘটা করে পালন করি কিন্তু এর চেতনা ছড়ানোর চিন্তা করিনা। একুশের সাথে বাঙ্গালীর স্বকীয়তা স্বাতন্ত্র যে জড়িয়ে রয়েছে তা এ প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে এমন ব্যাতিক্রমী উদ্যোগের বিকল্প নাই। সদর জায়ফরনগর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের মেম্বার মোঃ জমির আলী বলেন, উপনিবেশিক শাসন শোষনের বিরোদ্ধে একুশ একটি হাতিয়ার। একুশের চেতনা থেকে মুলত বাঙ্গালীর স্বাধীকারের উন্মেষ ঘটেছে।  এ ইতিহাস নতুন প্রজন্মের নিকট জানান দিতে এ ধরনের অনুষ্ঠানের কোন বিকল্প নেই। 

No comments: