জামিন পেলেন শিল্পপতি রাগীব আলী ও তার ছেলে আব্দুল হাই

বিশেষ প্রতিনিধি: সবকটি মামলায় জামিন পেয়েছেন দৈনিক সিলেটের ডাকের সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি, শিল্পপতি রাগীব আলী ও তার ছেলে পত্রিকার সম্পাদক আব্দুল হাই। বৃহস্পতিবার সকালে দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি আব্দুল ওয়াহাব মিয়ার নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ তার জামিন মঞ্জুর করেন। রাগীব আলীর আইনজীবী ব্যারিস্টার আব্দুল হালিম কাফি বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, উচ্চ আদালতের আদেশের পর রাগীব আলীর কারামুক্তিতে কোন বাধা নেই।

বৃহস্পতিবার সকালে দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি আব্দুল ওয়াহাব মিঞার নেতৃত্বাধীন সুপ্রীম কোর্টের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চ থেকে তারাপুর চা বাগানের ভূমি বন্দোবস্তের নামে ভূমি মন্ত্রণালয়ের স্মারক জালিয়াতি মামলায় তারা জামিন লাভ করেন। রাগীব আলীর আইনজীবী ব্যারিস্টার আব্দুল হালিম কাফি বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, এ মামলায় ইতোপূর্বে হাইকোর্ট থেকে জামিন লাভ করেন রাগীব আলী ও তার ছেলে আব্দুল হাই। কিন্তু, রাষ্ট্রপক্ষের আপীলের প্রেক্ষিতে সুপ্রীম কোর্টের অবকাশকালীন বেঞ্চ তার জামিন স্থগিত করে দেন। এরপর আসামীপক্ষের আবেদনের প্রেক্ষিতে এ নিয়ে বৃহস্পতিবার সুপ্রীম কোর্টের ফুল বেঞ্চে শুনানী অনুষ্ঠিত হয়। শুনানীশেষে উচ্চ আদালত হাইকোর্টের আদেশ বহাল রাখেন।

এর আগে তারাপুর চা বাগানের দেবোত্তর সম্পত্তিতে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ করে হাজার হাজার কোটি টাকা আত্মসাত এবং দৈনিক সিলেটের ডাক প্রকাশনা সংক্রান্ত একটি মামলায় উচ্চ আদালতের জামিন লাভ করেন তারা। তিন মামলায় জামিন লাভের পর রাগীব আলীর কারামুক্তিতে আর কোন বাধা নেই বলে জানান ব্যারিস্টার কাফি।

রাগীব আলীর পক্ষে শুনানীতে অংশ নেন ব্যারিস্টার ফজলে নুর তাপস, ব্যারিস্টার মেহেদী হাসান, ব্যারিস্টার মনসুরুল হক ও ব্যারিস্টার আব্দুল হালিম কাফি। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম ও অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল দিলুরুজ্জামান।

তারা একটি মামলায় রাগীব আলী ও তার ছেলের ১৪ বছরের কারাদন্ড, অপর মামলায় রাগীব আলীসহ ৫ আত্মীয়ের বিভিন্ন মেয়াদে সাজা এবং দৈনিক সিলেটের ডাক প্রকাশনা সংক্রান্ত একটি মামলায় রাগীব আলী ও তার ছেলের এক বছরের সাজা হয়।

No comments: