১০ হাজার চিকিৎসক নেবে সরকার; স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম

জুড়ী টাইমস সংবাদ: চিকিৎসাসেবা মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে দ্রুত সময়ের মধ্যে আরো ১০ হাজার চিকিৎসক নেবে সরকার। একই সঙ্গে ৪০ হাজার কর্মচারী নিয়োগ দেওয়া হবে। বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে বিভাগীয় পরিচালক, সিভিল সার্জন ও বিভিন্ন হাসপাতালের পরিচালকদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্বকালে এ কথা জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম।

তিনি বলেন, দ্রুততম সময়ের মধ্যে বিশেষ বিসিএসের মাধ্যমে ১০ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ দেওয়া হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে প্রথমে ৩ হাজার এবং পরে পর্যায়ক্রমে আরো ৭ হাজার চিকিৎসক নেওয়া হবে, যাতে মাঠপর্যায়ে চিকিৎসক সংকট নিরসন করা যায়।

মন্ত্রী আরো বলেন, তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির শূন্য পদে প্রায় ৪০ হাজার জনবল নিয়োগেরও উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। ফলে হাসপাতালে জনবলের অভাব থাকবে না এবং চিকিৎসাসেবা ব্যাহত হবে না।

চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করতে সরকার প্রতিশ্রুতিবদ্ধ, এ কথা জানিয়ে মোহাম্মদ নাসিম বলেন, সরকার শতভাগ চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করতে কাজ করছে। এ সেক্টরের সমস্যা, সঙ্কট চিহ্নিত করে পর্যায়ক্রমে নিরসন করা হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, চিকিৎসক সংকট কাটাতে তিন বছর আগে ৬ হাজার নতুন চিকিৎসক নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। তাদেরকে উপজেলায় পদায়ন করা হয়েছে, যাতে গ্রামে চিকিৎসক সংকট না থাকে।

গ্রাম ও ইউনিয়ন পর্যায়ে চিকিৎসকদের উপস্থিতি নিশ্চিত করতে বিভাগীয় পরিচালক ও সিভিল সার্জনদের নজরদারি বাড়ানোর নির্দেশ দিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

তিনি বলেন, তৃণমূল পর্যায়ে, বিশেষ করে দুর্গম এলাকার মানুষের চিকিৎসা যেকোনো মূল্যে নিশ্চিত করতে হবে। এজন্য চিকিৎসকদের কর্মস্থলে শতভাগ উপস্থিতি ও সেবা প্রদান নিশ্চিত করতে হবে।

‘সীমিত সম্পদ ও জনবল নিয়ে ১৬ কোটি মানুষের সেবা দেওয়ার জন্য চিকিৎসার সঙ্গে জড়িত চিকিৎসক-নার্স, কর্মচারী সকলকে সচেষ্ট থাকতে হবে। সম্প্রতি অর্থ মন্ত্রণালয়ের সহায়তায় হাসপাতালগুলোতে শয্যাপ্রতি খাদ্য ও পথ্য সংকটেরও সমাধান করেছে সরকার। ফলে সার্বিকভাবে স্বাস্থ্যসেবার মানও বেড়েছে,’ বলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে এ মতবিনিময় সভায় স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক, স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব সিরাজুল হক খান, চিকিৎসা শিক্ষা ও পরিবারকল্যাণ বিভাগের সচিব সিরাজুল ইসলাম, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ, নার্সিং ও মিডওয়াইফারি অধিদপ্তরের মহাপরিচালক তন্দ্রা শিকদার, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অধীন দেশের বিভিন্ন বিভাগের পরিচালক, সিভিল সার্জন ও হাসপাতালের পরিচালকগণ উপস্থিত ছিলেন।

No comments: