সাংবাদিকদের সঙ্গে সংলাপ আগস্টের দ্বিতীয় সপ্তাহে : নির্বাচন কমিশনের রোডম্যাপ

জুড়ী টাইমস সংবাদ: চলতি আগস্ট মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে গণমাধ্যমের সঙ্গে সংলাপের প্রস্তুতি নিচ্ছে নির্বাচন কমিশন। গত ৩১ জুলাই সুশীল সমাজের সঙ্গে ফলপ্রসূ সংলাপ শেষ করে ধারাবাহিকভাবে সংলাপ চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে এ সাংবিধানিক সংস্থাটি। গতকাল বুধবার ইসির জনসংযোগ বিভাগের পরিচালক এস এম আসাদুজ্জামান ভোরের কাগজকে বলেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে বিভিন্ন মহলের সঙ্গে সংলাপ শুরু করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এরই মধ্যে সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের সঙ্গে সংলাপ সম্পন্ন হয়েছে, যা খুবই ফলপ্রসূ হওয়ায় ইসিতে স্বস্তি বিরাজ করছে। এর পরে গণমাধ্যমের সঙ্গে সংলাপে বসতে চায় ইসি। 

গণমাধ্যমের প্রতিনিধিদের মধ্যে আছেন- বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার সম্পাদক, সিনিয়র রিপোর্টারসহ গুরুত্বপূর্ণ গণমাধ্যম ব্যক্তিরা। তাদের একটি লিস্ট প্রস্তুত করছি আমরা। এটি সম্পন্ন হলে তা সিইসির অনুমোদন সাপেক্ষে প্রতিনিধিদের আমন্ত্রণপত্র পাঠানো হবে। এ তালিকা প্রস্তুত প্রায় শেষ পর্যায়ে, দু-একদিনের মধ্যে তারিখ নির্ধারণ করে তাদের আমন্ত্রণ জানানো হবে। তবে এটির তারিখ এখনো নির্ধারণ করা হয়নি। আশা করছি, চলতি মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহেই এ সংলাপটি অনুষ্ঠিত হবে। তারিখ নির্ধারণ হলেই তা গণমাধ্যমকে জানানো হবে বলে জানান তিনি।

এদিকে নির্বাচন কমিশন মনে করছে, সুশীল সমাজের সঙ্গে সংলাপ যা ইতিহাসের সবচেয়ে সফল সংলাপ। বিভিন্ন রাজনৈতিক দলও এ সংলাপ নিয়ে ইসি সফলতার কথা বলছে। এদিকে সংলাপ সফল হওয়ায় প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদাসহ পুরো নির্বাচন কমিশন ও সচিবালয়ের সব কর্মকর্তার মধ্যে স্বস্তি বিরাজ করছে।

নির্বাচন কমিশনের ভারপ্রাপ্ত সচিব হেলাল উদ্দিন আহমেদ জানান, সুশীল সমাজের সঙ্গে সংলাপ সবাই ভালোভাবে নিয়েছে। এটা ইতিবাচক দিক। এর ধারাবাহিকতা বজায় রেখে সামনের সংলাপগুলোও সম্পন্ন করা হবে। এবার বসা হবে গণমাধ্যমের প্রতিনিধিদের সঙ্গে। এ ক্ষেত্রে জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক ও সম্পাদকদের সংলাপে অংশ নিয়ে মতামত জানানোর জন্য আমন্ত্রণ জানানো হবে। আজ বৃহস্পতিবারের মধ্যে সাংবাদিকদের তালিকা চূড়ান্ত করার পরিকল্পনা রয়েছে। এটি সম্পন্ন হলেই তাদের কাছে আমন্ত্রণপত্র পাঠানো হবে। এ ক্ষেত্রে চলতি মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহেই গণমাধ্যমের সঙ্গে সংলাপ আয়োজনের পরিকল্পনা রয়েছে। আর রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে সংলাপ আগামী ২৫ আগস্ট হতে পারে বলে মনে করছে কমিশন।

ইসি সূত্র জানিয়েছে, গত ৩১ জুলাইয়ের সংলাপের পর গত মঙ্গলবার বৈঠকে বসেছিল কমিশন। প্রথম সংলাপের পর বিভিন্ন মহল থেকে আসা প্রতিক্রিয়া নিয়ে বৈঠকে সবাই সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। এ ধারাবাহিকতা বজায় রাখার জন্য সবাই একমতও হয়েছেন।

উল্লেখ্য, গত ৩১ জুলাই সুশীল সমাজের সঙ্গে সংলাপে অনেক প্রস্তাব উঠে আসে। যার মধ্যে বেশি গুরুত্ব পেয়েছে ইসির সক্ষমতা বৃদ্ধি, গ্রহণযোগ্য নির্বাচন, নির্বাচনে সেনা মোতায়েন, ‘না’ ভোট প্রথা চালু, লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড বজায় রাখা ইত্যাদি।

No comments: