শ্রীমঙ্গল ৪৬ বিজিবির ১০ম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি: বিভিন্ন অনুষ্ঠানমালার মধ্যদিয়ে মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে পালিত হয়েছে ৪৬ বিজিবির ১০ম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকি। ২৮ আগষ্ট সোমবার দুপুরে শ্রীমঙ্গলস্থ ৪৬ বিজিবির ব্যাটালিয়ন সদরে বীর উত্তম শহীদ শফিক উদ্দিন চৌধুরী মিলনায়তনে আয়োজিত এ অনুষ্টানে প্রাধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজার-৪ আসনের সংসদ সদস্য উপাধ্যক্ষ আব্দুস শহীদ এমপি। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বিজিবি শ্রীমঙ্গল সেক্টরের সেক্টর কমান্ডার কর্ণেল আশরাফুল ইসলাম। ৪৬ বিজিবির অধিনায়ক লে : কর্ণেল এস এম আনিসুজ্জামানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মেজর খালেদ, মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসক মো : তোফায়েল ইসলাম, মৌলভীবাজার পুলিশ সুপার মো : শাহজালাল, শ্রীমঙ্গল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো : মোবাশশেরুল ইসলাম, শ্রীমঙ্গল থানা অফিসার ইনচার্জ কে এম নজরুল ইসলাম ও সিলেট বন্যপ্রাণী রেঞ্জের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মিহির কান্তি দো। এর আগে অতিথিরা ব্যাটালিয়নের ১০ বছর পূতির্তে বিশাল একটি কেক কাটেন। তবে প্রতিষ্টা বার্ষিকির অনান্য অনুষ্টান শোকের মাসের কারণে ৪ সেপ্টেম্বর স্থানান্তরিত করা হয়েছে।

সভায় ৪৬ বিজিবির অধিনায়ক লে : কর্ণেল এস এম আনিসুজ্জামান তার বক্তব্যে বলেন, মৌলভীবাজার জেলার ১৪৫ কিলোমিটার ব্যাপী কোথাও নদী, কোথাও পাহাড়, কোথাও ঘন জঙ্গল কোথাও ঘন জনবসতি। বিশাল এই এলাকায় ৪৬ বিজিবির অতন্দ্র প্রহরীরা সীমান্ত রক্ষায় সফলতার সহিত দায়িত্ব পালন করে আসছেন। আর তাদের দায়িত্ব পালনের ধারাবাহিকতায় গত এক বছরে তাদের অভিযানে ৭১ কোটি ৭১ লক্ষ ৫৮ হাজার ৬শত ৫০ টাকা মুল্যমানের বিভিন্ন অবৈধ সামগ্রী আটক করেছেন। এর মধ্যে তারা সবচেয়ে সোচ্চার ছিলেন মাদক পাচাররোধে।

তিনি বলেন, মাদকের ভয়াল থাবা আজ আমাদের যুব সমাজকে গ্রাস করেছে। মাদকের কু-প্রভাবে সমাজে বেড়ে চলেছে আনাচার এবং অবক্ষয়। জাতির উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ আজ ম্লান হতে চলেছে মাদকের অবাধ বিস্তারে। শুধুমাত্র একজন মাদকাসক্ত সন্তান সমগ্র পরিবারের জন্য বয়ে আনছে সীমাহীন দূর্ভোগ ও হতাশা। আর মাদকের এই করালগ্রাসে যাতে আমাদের সমাজ আক্রান্ত না হতে পারে তাই মৌলভীবাজার সীমান্ত এলাকার পাহারায় দায়িত্বরত ৪৬ বিজিবি জিরো টলারেন্সে থেকে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। এ ছাড়াও অবৈধ অস্ত্র, নারী ও শিশু পাচার রোধ, আভ্যন্তরিন নিরাপত্তা ও বে-সামরিক প্রশাসনকে সহায়তাসহ দেশমাতৃকার সেবায় তারা নানাবিদ কাজ করে আসছেন।

No comments: