হাকালুকি হাওরে চুন ছিটিয়ে পানি দূষণমুক্ত করা হচ্ছে

সাইফুল ইসলাম সুমন: দেশের সর্ববৃহৎ হাওর ও মিঠাপানির মৎস্যভাণ্ডারখ্যাত হাকালুকির পানি দূষণমুক্ত ও মাছের মড়করোধে প্রশাসন চুন ছিটানো শুরু করেছে। জুড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) বর্ণালী পাল এর নেতৃত্ত্বে মঙ্গলবার হাওরে চুন ছিটিয়েছেন উপজেলা মৎস্য বিভাগ । মাছ ধরায় নিষেধাজ্ঞা জারি করায় হাকালুকি হাওর পারের ২২ হাজার জেলে জীবন-জীবিকা নিয়ে বেকায়দায় পড়েছেন। 

জানা গেছে, সম্প্রতি অকাল বন্যায় হাকালুকি হাওরের ২৫ হাজার হেক্টরের কাঁচা-পাকা ধান তলিয়ে যায়। দীর্ঘদিন এসব ধান পানিতে নিমজ্জিত থাকায় তা পচে পানিতে অ্যামোনিয়ার পরিমাণ বেড়ে যাওয়ায় ব্যাপক হারে মারা যায় বিভিন্ন প্রজাতির মাছ। গত দু’দিনে হাওরে আইড়, বোয়াল, রুই, কাতলা, কালিবাউস, সরপুঁটি, পাবদা, ঘুলশা, টেংরা, পুঁটি, বাইমসহ নানা জাতের প্রায় ২০ টন মাছ মারা গেছে বলে জানিয়েছে মৎস্য বিভাগ। এভাবে হাওরে মাছ মরতে থাকলে মাছের আকাল দেখা দিতে পারে বলে সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন।

দূষিত পানি আর পচা মাছে মারাত্মক পরিবেশ বিপর্যয় সৃষ্টির আশঙ্কায় প্রশাসনের পক্ষ থেকে সোমবার এলাকায় মাইকিং করে জাল দিয়ে মাছ ধরার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। আর এতে মাছ ধরার ওপর নির্ভরশীল হাওরপাড়ের ২২ হাজার জেলে বেকায়দায় পড়েছেন। 

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) বর্ণালী পাল বলেন, হাকালুকি হাওরের পানি দুষণমুক্ত ও মাছের মড়করোধে মঙ্গলবার থেকে চুন ছিটানো শুরু হয়েছে। বিষক্রিয়ায় মারা যাওয়া ও অসুস্থ মাছ খেলে বিভিন্ন কঠিন রোগের আশঙ্কা রয়েছে। এ জন্য আপাতত মাছ ধরায় নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

No comments: