জুড়ীতে জুয়া খেলায় বাধা দেওয়ায় সংঘর্ষ, আহত-৩, মোটরসাইকেলে আগুন

বিশেষ প্রতিনিধি: মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলায় জুৃয়া খেলায় বাধা দেওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এতে ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) এক সদস্যসহ তিন জন আহত হয়েছেন। এ সময় ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী জুয়া খেলায় অংশগ্রহণকারীদের দুটি মোটরসাইকেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। গত শুক্রবার (২১ এপ্রিল) রাতে উপজেলার পূর্ব জুড়ী ইউনিয়নের ছোট ধামাই গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, ছোট ধামাই গ্রামে মণিপুরি সম্প্রদায়ের ২০০ পরিবার বসবাস করে। ছয়-সাত দিন ধরে গ্রামের মৃত চন্দ্র কুমার সিংহের স্ত্রী সরোজনী দেবীর বাড়িতে জুয়া খেলা চলছিল। এলাকার কয়েকজন তরুণ একাধিকবার ওই বাড়িতে গিয়ে জুয়ার আসর বন্ধের অনুরোধ করেন। কিন্তু, তা বন্ধ হয়নি। জুয়া আসর বসার খবর পেয়ে শুক্রবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে এলাকার ৪০-৫০ জন তরুণ সরোজনীর বাড়িতে যান। এ সময় সেখানে গ্রামের চাউবেন সিংহসহ আরও ১০-১২ জন বহিরাগত লোককে জুয়া খেলতে দেখা যায়। একপর্যায়ে তরুণেরা জুয়াড়িদের ডেকে এনে চলে যেতে বলেন। এ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে প্রথমে তর্কাতর্কি হয়। পরে দুই পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষে পূর্ব জুড়ী ইউপির ৭ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য বাবুল মিয়া (৪৫), বড়লেখা উপজেলার গজভাগ গ্রামের ফজিল আহমদ (৪০) ও চাউবেন আহত হন। স্বজনেরা ছুটে এসে আহতদের রাতেই কুলাউড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করেন। সংঘর্ষ চলাকালে ক্ষুব্ধ লোকজন সরোজনীর বাড়ির সামনে রাখা বাবুল ও ফজিলের মোটরসাইকেলে আগুন ধরিয়ে দেয়।

তবে আহত ফজিল আহমদ দাবি করেন, তিনি বেশ কিছু দিন আগে চাউবেনকে ৫০ হাজার টাকা ধার দিয়েছিলেন। শুক্রবার ওই টাকা আনতে ছোট ধামাইয়ে যান। এ সময় স্থানীয় কিছু লোক তাঁর ওপর হামলা চালান ও মোটরসাইকেলে আগুন ধরিয়ে দেন। এ ব্যাপারে তিনি থানায় লিখিত অভিযোগ দেবেন।

জুড়ী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. কামরুজ্জামান গতকাল শনিবার (২২ এপ্রিল) বিকেলে মুঠোফোনে বলেন, ছোট ধামাই গ্রামে শুক্রবারের ঘটনা সম্পর্কে তাঁরা কিছু জানেন না। বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখবেন।

No comments: