জুড়ীতে বিজিবি-বিএসএফের ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক পর্যায়ে বৈঠক

সাইফুল ইসলাম সুমন: বিজিবি’র ৫২ ব্যাটালিয়ন বিয়ানীবাজার ও বিএসএফের পানিসাগর সেক্টরের (ত্রিপুরা) ১৫৯ ব্যাটেলিয়নের অধিনায়ক পর্যায়ে সৌজন্য বৈঠক গত শনিবার দুপুরে মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলার ফুলতলা চা-বাগান কনফারেন্স রুমে অনুষ্ঠিত হয়।

বিএসএফের ১৫৯ ব্যাটেলিয়নের বিদায়ী অধিনায়ক এল.এস দাহিয়া ও ৫২ বিজিবি’র অধিনায়ক লে. কর্ণেল নেয়ামুল কবির বৈঠকে স্ব-স্ব ব্যাটেলিয়নের নেতৃত্ব দেন।

বৈঠক শেষে বিজিবি ও বিএসএফ জানায়, দু’দেশের সীমান্ত রক্ষীদের মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক অব্যাহত রয়েছে। সীমান্তে উত্তেজনা, চোরাচালান, অবৈধ অনুপ্রবেশ রোধ ও আইন শৃঙ্খলা স্বাভাবিক রাখতে এ সম্পর্ক খুবই অপরিহার্য। ব্যাটেলিয়ন পর্যায়ে আলোচনার মাধ্যমে সীমান্তের ছোট খাটো যে কোন সমস্যা নিরসনের বিষয় উভয় ব্যাটেলিয়ন প্রধান পুনর্ব্যক্ত করেন।

সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে দুই ব্যাটেলিয়ন প্রধান বলেন, সীমান্ত হাট চালুর অনেক অগ্রগতি হয়েছে। ইতিমধ্যে ভুমি নির্ধারণ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। চুড়ান্ত বাস্তবায়নের জন্য জেলা প্রশাসক পর্যায়ে আলোচনা চলছে। সীমান্ত হাট চালু হলে উভয় দেশের মানুষ উপকৃত হবেন। চোরাচালান অনেকাংশে কমে যাবে। রাগনা-বটুলি স্থল বন্দর দিয়ে বাংলাদেশীদের ভারতে যাতায়াতের বিষয়টি রাষ্ট্রীয় সিদ্ধান্তের ব্যাপার। এছাড়া ভিসা ছাড়াই বিশেষ অনুষ্ঠানে যোগদানের ক্ষেত্রে মিডিয়াকর্মীদের  ত্রিপুরার ধর্মনগর যাতায়াতে সহজীকরণের আশ্বাস দেন বিএসএফের ১৫৯ ব্যাটেলিয়নের বিদায়ী অধিনায়ক এল.এস দাহিয়া ও ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক জ্ঞানেন্দ্র।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন বিএসএফের ১৬৬ ব্যাটেলিয়নের ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক জ্ঞানেন্দ্র, ১৫৯ ব্যাটেলিয়নের সেকেন্ড ইন কমান্ডার আর.এন মিশারা, লে. কর্ণেল প্রসাদ, বিজিবি ৫২ ব্যাটেলিয়নের সহকারী পরিচালক হারুনুর রশিদ, জুড়ী কোম্পানী কমান্ডার সুবেদার আমিনুল ইসলাম, ফুলতলা কোম্পানী কমান্ডার সুবেদার এনামুল হক প্রমূখ।

এদিকে বিএসএফ এর ১৫৯ ব্যাটালিয়ন ত্রিপুরা হতে মিজোরাম স্থানান্তর হওয়ায় বিদায়ী অধিনায়ক এল.এস দাহিয়াকে এক বিদায়ী সংবর্ধনা প্রদান করেন ৫২ বিজিবি’র অধিনায়ক লে. কর্ণেল নেয়ামুল কবির। পাশাপাশি ওই অনুষ্ঠানে জুড়ী টাইমস এর পক্ষ থেকে বিদায়ী অধিনায়ক এল.এস দাহিয়াকে এক বিদায়ী সম্মাননা প্রদান করা হয়।


No comments: