জুড়ীতে চা শ্রমিকদের ২ঘন্টা সড়ক অবরোধ

জুড়ী টাইমস সংবাদ: ধামাই টি কোম্পানীর মালিকানাধীন জুড়ী উপজেলার ধামাই, সোনারুপা, আতিয়াবাগ চা বাগান এবং পুঁচি ও শিলঘাট ফাঁড়ি বাগানের শ্রমিকদের ন্যায্য মজুরী, বকেয়া পাওনা, রেশন, চিকিৎসা, গৃহনির্মাণ, গ্যাস, বিদ্যুৎ, নিরাপদ পানিয় সহ বিভিন্ন দাবি আদায়ের লক্ষ্যে গত ৩১ মার্চ সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে জুড়ী উপজেলা শহরের জাঙ্গিরাই ত্রিমোহনীতে ৫ চা বাগানের শ্রমিকরা রাজপথ অবরোধ করার ঘোষণা দেয়। 
 
রোববার (২ এপ্রিল) পূর্বের ঘোষনা ও চলমান আন্দোলনকে বেগবান করার লক্ষ্যে জাঙ্গিরাই ত্রিমোহনীতে বেলা ১ টা থেকে ৩ পর্যন্ত ৫ চা বাগানের শ্রমিকরা কর্মবিরতি ও সড়ক অবরোধ করে রাখে। 
 
যাদব রুদ্রপালের সভাপতিতে দীর্ঘ তিন বছর থেকে বাগান গুলোতে মালিকপক্ষ কর্তৃক সৃষ্ট সমস্যার নিরসন ও শ্রমিক- কর্মকর্তার ন্যায্য অধিকার ফিরিয়ে দেয়ার জন্য কর্মবিরতি ও সড়ক অবরোধ করে। এসময় শ্রমিক কর্মচারীদের মধ্যে উপসি’ত ছিলেন এ এস এম জাহিদ, মিসবাউর রশিদ খান, আব্দুল হাই, মুমিন চৌধুরী, নূর আলী, শ্রমিক নেতা রজত ভট্রাচার্য, রতন রুদ্র পাল, বিজয় মুন্ডা, বাদল রুদ্র পাল, শরৎ রিকমুন, গোপাল রুদ্র পাল, শুণ উরিয়া, বাদল উরিয়া, তুষার রায় চৌধুরী, গোলাম ফারুক, মনজ চন্দ্র চক্রবর্তী, কান্ত রুদ্র পাল, নিল কান্ত সিংহ, কে এম শর্ম্মা, কামিনী রুদ্র পাল সহ প্রায় হাজারের ও বেশী ৫ বাগানের চা শ্রমিক নারী ও পুরুষ অবরোধে অংশগ্রহণ করে। 
 
জাঙ্গিরাই ত্রিমোহনীতে অবরোধ চলাকালিন সময় কন্টিনালা ব্রিজ হতে জাঙ্গিরাই মাদ্রাসা পর্যন্ত এবং জাঙ্গিরাই ত্রিমোহনী হতে পোষ্ট অফিস রোড পর্যন্ত কয়েক হাজার গাড়ী আটকা পরে। ৩ টার দিকে পশ্চিম জুড়ী ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মইন উদ্দিন আহমদ মঈজন চা শ্রমিকদের অবরোধ তুলে নেয়ার জন্য অনুরোধ জানান। পরে জুড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ জালাল উদ্দিন চা শ্রমিকদের কে বলেন, জেলায় গেছেন জুড়ী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান গুলশান আরা চৌধুরী মিলি ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ নাছির উল্লাহ খান ভিডিও কনফারেন্স এর মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব মহুদয় বরাবরে ৫ বাগানের চা শ্রমিকদের দাবী আদায়ের কথা জানানো হবে। অফিসার ইনচার্জ মোঃ জালাল উদ্দিনের বক্তব্যে চা শ্রমিক ও কর্মচারীরা অবরোধ তুলে নিয়ে জানান দাবী আদায় না হলে অনির্দিষ্টকালের অবরোধ দেয়া হবে।
 

No comments: