জুড়ীর ধামাই চা-বাগানে বকেয়া পরিশোধসহ বিভিন্ন দাবিতে শ্রমিকদের বিক্ষোভ

বিশেষ প্রতিনিধি; বকেয়া বেতন-ভাতা পাওয়াসহ বিভিন্ন দাবিতে মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলার ধামাই চা-বাগানের শ্রমিক-কর্মচারীরা গত শনিবার বিক্ষোভ করেছেন।

শ্রমিক ও কর্মচারীরা বলেন, নিউ ধামাই টি কোম্পানির ধামাই বাগানে ১০০৮ জন স্থায়ী ও ১০০ জন অস্থায়ী শ্রমিক, ৩২ জন শ্রমিক সরদার ও ২১ জন কর্মচারী রয়েছেন। স্থায়ী শ্রমিকদের ১৭ সপ্তাহের রেশন বাকি। অস্থায়ী শ্রমিকদের ২৭ সপ্তাহের মজুরির টাকা দেওয়া হয়নি। কর্মচারীরা ৯ মাস ধরে বেতন পাচ্ছেন না। শ্রমিক সরদারদের ৩ মাসের বেতন বকেয়া। এ ছাড়া স্থায়ী শ্রমিকদের ভবিষ্য তহবিলের সাড়ে ৯ লাখ টাকা কোম্পানির কাছে পাওনা রয়েছে।
এদিকে বিদ্যুৎ ও গ্যাসের বিল বকেয়া থাকায় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বাগানের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছে। এতে চা-প্রক্রিয়াজাতকরণের কাজ বন্ধ হয়ে গেছে। বাগানে কোনো চিকিৎসক নেই।

এ অবস্থায় শনিবার সকাল ৯টা থেকে বেলা দেড়টা পর্যন্ত প্রায় ৮০০ শ্রমিক কারখানার ভেতরে বিক্ষোভ করেন।
বাগানের শ্রমিক পঞ্চায়েত কমিটির সভাপতি যাদব রুদ্রপাল বলেন, তাঁরা দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করে যাচ্ছেন। কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালকের কাছে একাধিকবার আবেদন জানানো হয়েছে। স্থানীয় সাংসদ, উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকেও (ইউএনও) বিষয়টি লিখিতভাবে জানানো হয়েছে। আজ রোববারের মধ্যে দাবি পূরণের উদ্যোগ না নেওয়া হলে সোমবার ইউএনওর কার্যালয় ঘেরাও করা হবে।

নতুন ব্যবস্থাপক নাসির উদ্দিন খান বলেন, কোম্পানি ১ মার্চ তাঁকে নিয়োগ দিয়েছে। তবে আগের ব্যবস্থাপক এখনো তাঁকে দায়িত্ব বুঝিয়ে দেননি। শ্রমিকদের বিভিন্ন সমস্যার বিষয়ে কোম্পানির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করছেন।

ইউএনও মোহাম্মদ নাছির উল্লাহ খান মুঠোফোনে বলেন, ধামাই বাগানের সমস্যা নিয়ে ব্যবস্থাপনা পরিচালকের সঙ্গে তিনি মুঠোফোনে কথা বলেছিলেন। ব্যবস্থাপনা পরিচালক তখন সমস্যা সমাধানের আশ্বাসও দিয়েছিলেন।

No comments: