রক্ত দিয়ে মূমূর্ষ স্কুল শিক্ষিকাকে বাঁচাতে এগিয়ে এলেন বালিয়াকান্দির তরুন সংগঠন

রাজবাড়ী প্রতিনিধি: রক্ত দিয়ে মূমূর্ষ স্কুল শিক্ষিকাকে বাঁচাতে এগিয়ে আসল রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দির সামাজিক আন্দোলনের সংগঠন “তরুণ সংগঠন”। রক্তগ্রহণকারী ঐ শিক্ষকের নাম শামীমা। সে গোপালগঞ্জ জেলার মকছেদপুর উপজেলার একটি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা।

জানা যায়, গোপালগঞ্জের মকছেদপুর উপজেলার এক প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা শামীমা আক্তার দীর্ঘদিন যাবৎ পিত্তথলীর পাথরসহ বিভিন্ন রোগে ভুগছিলেন। মূমূর্ষ অবস্থায় ফরিদপুর ডায়াবেটিস হাসপাতালে ভর্তি হন তিনি। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানান অপারেশন করতে হলে রক্তের প্রয়োজন। এ কথা শুনে রক্ত খোঁজাখুজিতে ব্যস্ত হয়ে পড়েন তার আত্বীয় স্বজন। কোন মতো মিলছিল না রক্ত। রক্ত মিললেও নানা ওজুহাতে দিতে রাজি হচ্ছিল না কেউ। বিষয়টি জানতে পারে রাজবাড়ী জেলার বালিয়াকান্দি উপজেলার মাদক বিরোধী সংগঠন “তরুন সংগঠন”। এরই প্রেক্ষিতে সংগঠনের সদস্য ও ইনষ্টিটিউট অব মেডিকেল এ্যাসিসটেন্ট পড়–য়া ছাত্র জুয়েল রানা তাকে রক্ত দিতে হাসপাতালে যান।

তরুণ সংগঠনের পরিচালক মো: আবুল কালাম আজাদ জানান, বিশ্বস্ত সূত্রে জানতে পারি ফরিদপুর ডায়াবেটিস হাসপাতালে একজন শিক্ষিকার জন্য তার আত্মীয় স্বজন হন্যে হয়ে খুঁজছেন। তাই আমাদের সংগঠনের সদস্য জুয়েল রানার রক্তের সাথে ঐ শিক্ষিকার রক্তের মিল থাকায় তাকে হাসপাতালে পাঠাই। ডাক্তার পরীক্ষা নিরীক্ষা শেষে তার রক্ত নেওয়ার ব্যবস্থা করে। তিনি আরও জানান, আমরা সব তরুণ এক হয়ে মাদকমুক্ত সমাজ গড়তে চাই। সেই সাথে সমাজের অবহেলিত দরিদ্র মানুষের পাশে দাড়াতে চাই। ইতিমধ্যে আমাদের সকল সদস্য রক্তের গ্রুপিং নির্ণয় করেছে। যদি কারো রক্তের প্রয়োজন হয় তাহলে আমাদের সাথে তারা যোগাযোগ করতে পারেন, মোবাইল নং- ০১৭৭৭ ৫০৩২০৪।
 

No comments: