৫১ বছর যাবৎ বসবাস করেও ভিটেমাটি থেকে উচ্ছেদ !

জুড়ী টাইমস রিপোর্ট: ৫১ বছর যাবৎ বসবাস করেও আদালতের রায়ে নিজ ভিটেমাটি থেকে উচ্ছেদ হতে হলো একটি অসহায় পরিবারকে। নিজের তৈরী ঘর-বাড়িতে পুলিশের তালা লাগিয়ে দেওয়ায় এখন খোলা আকাশের নিচে তাদের মানবেতর জীবন-যাপন করতে হচ্ছে। অসহায় প্রতিবন্ধি মেয়েকে নিয়ে এখন কোথায় যাবে এ চিন্তায় দিশেহারা বাড়ির কর্তা ছত্রধারী গোয়ালা। 

ঘটনাটি ঘটেছে গত ১০ নভেম্বর বৃহস্পতিবার দুপুরে। পূর্ব নোটিশ ছাড়া হঠাৎ করে মৌলভীবাজার জজ আদালতের নাজির বিশ্বজিৎ চৌধুরী জুড়ী থানার একদল পুলিশকে নিয়ে হাজির হন জেলার জুড়ী উপজেলার ফুলতলা ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী চুঙ্গাঁবাড়ী এলাকার সাবেক ৩ বারের নির্বাচিত মেম্বার ছত্রধারী গোয়ালার বাড়ীতে। প্রতিপক্ষের রায়ের কপি হাতে বাড়ীর লোকজনকে বাড়ী খালি করে দেওয়ার নির্দেশ দেন তিনি। কিংকর্তব্য বিমুঢ় বাড়ীর সদস্যরা ঠাঁয় দাড়িয়ে থাকলে এসময় পুলিশ সদস্যরা ঘর থেকে কাঁথা-বালিশ সহ অন্যান্য আসবাবপত্র ঘরের বাহিরে ছুড়ে ফেলতে থাকেন। এসময় পরিবারের সদস্যদের ব্যবহৃত স্বর্নালংকার ও কিছু নগদ টাকা ভিতরে রেখে কিছুক্ষনের মধ্যেই খালি ঘর গুলোতে তালা লাগিয়ে দেয় পুলিশ। আর বাড়ির চতু:সীমায় লাল পতাকা টাঙ্গিঁয়ে দেয়া হয়। বিত্তশালী প্রতিপক্ষের অনুকুলে আদালতের রায় হলেও রায়ের কপি হাতে পাননি ছত্রধারী গোয়ালা। এমন অবস্থায় তার তৈরী গৃহাদী পাকা দালান কোঠা থেকে উচ্ছেদ করার যৌক্তিকতা কতটুকু ? । 

এঘটনায় যেমন হতবাক হয়েছেন ছত্রধারীর পরিবারের সদস্যরা তেমনি হতবাক ওই এলাকাবাসী । ঘটনার পরদিন এলাকাবাসী ছত্রধারীর বাড়ির সম্মুখে এক মানববন্ধনে মিলিত হয়। মানববন্ধনে এলাকাবাসী দাবি জানায়, ৫১ বছর যাবৎ বসবাস করে মাননীয় আদালতের রায়ে একটি পরিবার এভাবে ধ্বংস হয়ে যেতে পারেনা। তারা দাবি জানায়, ছত্রধারী গোয়ালার প্রতিবন্ধি মেয়ে সুমিত্রা গোয়ালা (১৬) পুলিশের তান্ডব দেখে যে ভয় পেয়েছে তা খুবই অমানবিক। আদালতের কাছে আমাদের মানবিক দাবী এই ছত্রধারী গোয়ালার অসহায় পরিবারের বিষয়টি গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করবেন।

উচ্ছেদ প্রসংগে জুড়ী থানার কর্মরত পুলিশের সহকারী পরিদর্শক মো: ওয়াহেদ গাজী বলেন, মাননীয় আদালতের নির্দেশে আমরা উচ্ছেদ অভিযান চালিয়েছি। 
উচ্ছেদ অভিযানে নেতৃত্বদানকারী মৌলভীবাজার জজ আদালতের নাজির বিশ্বজিৎ চৌধুরী বলেন, আদালতের নির্দেশে ছত্রধারী গোয়ালার পরিবারকে ওই ভূমী থেকে উচ্ছেদ করা হয়েছে। এখন যদি ছত্রধারী গোয়ালার কাগজ পত্র থাকে তবে সে আদালতের আশ্রয় নিতে পারে।  

No comments: