বড়লেখায় লন্ডন প্রবাসী হত্যায় গ্রেপ্তার ফাহাদের আদালতে জবানবন্দি

বিশেষ প্রতিনিধি : মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার চান্দগ্রামের যুক্তরাজ্য প্রবাসী ফাতির আলীর স্ত্রী মায়ারুন্নেছা হত্যায় জড়িত থাকার অভিযোগে ফাহাদ আহমদ সবুজ (২২) নামে এক যুবককে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। তিনি বিয়ানীবাজার উপজেলার বারইগ্রামের ফারুক উদ্দিনের ছেলে। গত রোববার রাতে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই অমিতাভ দাস তালুকদারের নেতৃত্বে পুলিশ বারইগ্রাম থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করে। গত সোমবার দুপুরে বড়লেখা সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট হাসান জামানের আদালতে ফাহাদ হত্যার বর্ণনা দিয়ে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।
থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গত ১৩ সেপ্টেম্বর রাতে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ নাগরিক মায়ারুন্নেছাকে (৬৫) চান্দগ্রামের বাড়িতে দুর্বৃত্তরা শ্বাসরোধে হত্যা করে। হত্যার ঘটনায় মায়ারুন্নেছার দেবর হারিছ আলী বাদি হয়ে দুজনের নামোল্লেখ ও আরো কয়েকজনকে অজ্ঞাতনামা রেখে থানায় মামলা করেন।
এই ঘটনার পরদিন (১৪ সেপ্টেম্বর) মায়ারুন্নেছার পুত্রবধূ ফাহিমা বেগমকে সন্দেহভাজন হিসেবে পুলিশ গ্রেপ্তার করে। পরে পুত্রবধূ ফাহিমা শাশুড়িকে হত্যা ঘটনার বর্ণনা দিয়ে আদালতে জবানবন্দি দেন। স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়ার পর আদালত হত্যাকান্ডের সহযোগী হিসেবে পূত্রবধু ফাহিমাকে জেল হাজতে প্রেরণ করেন।
বড়লেখা থানার অফিসার ইনচার্জ মুহাম্মদ সহিদুর রহমান গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘ফাহাদ আদালতে হত্যাকান্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে। তাঁকে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। এই হত্যাকান্ডে জড়িত অভিযোগে এ পর্যন্ত দু’জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।’

No comments: