জেলার পৃথক দুটি স্থানে দূর্ধর্ষ ডাকাতি : স্বর্ণালংকার সহ বন্ধুক লুট

বিশেষ প্রতিনিধি:  মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল ও রাজনগর উপজেলায় পৃথক দুটি স্থানে দূর্ধর্ষ ডাকাতি সংঘটিত হয়েছে। ডাকাতরা নগদ টাকা, স্বর্ণালংকার সহ বন্দুক লুট করে নিয়ে যায়।

গত শনিবার ভোর রাতে শ্রীমঙ্গল শহরতলীর উত্তর ভাড়াউড়া এলাকার ব্যবসায়ী আলফু মিয়ার বাসার দরজা ভেঙ্গে ধারালো অস্ত্রের মুখে ১০ ভরি স্বর্ণালংকারসহ মুল্যবান মালামাল ও লাইসেন্স করা বন্ধুক লুট করে পালিয়ে যায় ডাকাতদল। এ সময় আলফু মিয়া ডাকাতদের বাঁধা দিলে ডাকাতের হামলায় মারাত্মক ভাবে আহত হন। শ্রীমঙ্গল থানার ওসি মাহবুবুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ডাকাতদল পালিয়ে যাওয়ার সময় ধানী জমিতে লুট  হওয়া বন্ধুকটি ফেলে যায়।

অপর দিকে রাজনগর উপজেলা সদরের প্রান কেন্দ্র খারপাড়া রোডে একটি বাড়িতে ডাকাতি ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার দিবাগত রাতে ডাঃ আল আমিন আব্দুল হাই চৌধুরীর বাড়িতে  এ ডাকাতি ঘটনা ঘটে। ডাকাতদল পরিবারের লোকজনের চোঁখ মুখ বেঁধে ও অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে স্বর্ণ, নগদ টাকা ও মোবাইল ফোন লুট করে।

পারিবারিক সুত্রে জানাযায় ২২ থেকে ২৫ বছর বয়সী ৮/৯ জন ডাকাত রাত আনুমানিক দেড়টায় কলাফ ছেবল গেইটের তালা খুলে বেড রোমের দরজা ভেংগে প্রবেশ করে গৃহকর্তা ডাঃ আল আমিন আব্দুল হাই চৌধুর ও স্ত্রী রাজনগর মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা নাজমা টৌধুরীর চোঁখ মুখ বেঁধে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে আলমারীর চাবি হাতিয়ে নিয়ে আলমারীতে  রক্ষিত ১৫ ভরি স্বর্ণ ও নগদ ৫০ হাজার টাকা ও তিনটি মেবাইল ফোন ডাকাতরা  লুট করে। গৃহকর্তা আরও জানান বাড়িতে ৫ টি বেড রুম ছিল সবকটি রুমে ডাকাতরা প্রবেশ করে আলমারী সহ সকল আসবাবপত্র তছনছ করেছে। ঘটনাস্থল রাজনগর থানার ওসি শ্যামল বনিক পরিদর্শন করেছেন।

No comments: