জুড়ীতে হেযবুত তওহীদের জঙ্গিবাদ সন্ত্রাসবাদ ও সাম্প্রদায়িকতা বিরোধী লিফলেট বিতরন

ফখরুল ইসলাম: জুড়ী উপজেলার বিভিন্ন স্থানে অরাজতৈনিক আন্দোলন হেযবুত তওহীদের কর্মীরা জঙ্গিবাদ সন্ত্রাসবাদ ও সাম্প্রদায়িকতা বিরোধী একটি লিফলেট বিতরন করছে। তাদের পরিবেশিত লিফলেটে তারা দাবি করছে পশ্চিমা সাম্রাজ্যবাদিরা জঙ্গিবাদের স্রষ্টা।   তাদের তৈরী অত্যাধুনিক অস্ত্র ব্যবসাকে জমজমাট করতে এবং অস্ত্রের বাজার সৃষ্টি করতে মধ্য প্রাচ্যে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা ও ধর্মীয় উম্মাদনা সৃষ্টি করে কথিত খেলাফত রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার নামে একের পর এক মুসলিম রাষ্ট্রগুলোতে জঙ্গিবাদের বিস্তার ঘটাচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় মুসলিম প্রধান বাংলাদেশকে টার্গেট করেছে। সাম্প্রতিক সময়ে মুসলিম নামধারী কিছু বিপথ গামী তরুনকে দিয়ে বিদেশী নাগরিক ও সংখ্যালগু লোকদের হত্যা করেছে। এতে ইসলাম ও মুসলমানদের প্রচুর ক্ষতি হয়েছে। নাস্তিকেরা শত বছরে ধর্মের যে ক্ষতি করতে পারে নি ইসলামী জঙ্গিরা অল্প কিছু দিনের মধ্যে সে ক্ষতি সাধন করতে সক্ষম হয়েছে। সা¤্রাজ্যবাদীরা ইসলামকে ধ্বংস করতে এ পর্যন্ত যতগুলো অস্ত্র প্রয়োগ করেছে তন্মধ্যে জঙ্গিবাদ সবচাইতে সাংঘাতিক অস্ত্র বলে তারা প্রচার করছে। তাই একে প্রতিহত করা সকলের ঈমানী কর্তব্য বলে তারা মনে করছে। সকল ধর্মপ্রাণ মুসলমানকে এখন অবশ্যই ইসলামের নামে চলা সকল সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে সোচ্ছার হতে হবে বলে তারা দাবী করছে। লিফলেটটিতে আল্লাহ তাঁর রাসুলের (সাঃ) ইসলাম আর বর্তমানে সমাজে প্রচলিত ইসলাম এক নয় বলে দাবি করে তারা বলছেন আল্লাহ ও তাঁর রাসুলের (সাঃ) সেই প্রকৃত ইসলাম সকল জাতি, ধর্ম, বর্ণ, নির্বিশেষে সব মানুষকে নিয়ে একটি শান্তিপূর্ণ সমাজ ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করেছিল। প্রতিটি মানুষ নির্বিঘেœ নির্ভয়ে চলাফেরা জীবন যাপন করতে পারত। কারও বিশ্বাসের উপর কোন জবরদস্তি ছিল না। মানুষের জীবন সম্পদ ও সম্মানের পূর্ণ নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। আর আজ জঙ্গিবাদীরা সাধারণ মানুষকে নৃশংস উপায়ে হত্যা করে ত্রাস সৃষ্টি করতে চাচ্ছে। আল্লাহর রাসুল (সাঃ) এর ইসলাম ঐক্যহীন বিচ্ছিন্ন জনগোষ্ঠীকে ঐক্যবদ্ধ করেছিল, শত্রুকে ভাই বানিয়েছিল। আর আজকে ইসলামের নামে ঐক্যবদ্ধ জাতিকে ঐক্যহীন করা হচ্ছে। ভাইকে শত্রু বানানো হচ্ছে। আল্লাহর রাসুলের (সাঃ) ইসলাম স্বার্থপর আতœকেন্দ্রীক মানুষকে নিস্বার্থভাবে মানবতার কল্যাণে উৎস্বর্গিকৃত প্রাণ মানুষে পরিনত করেছিল। সকল অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী ও সোচ্ছার  মানুষ তৈরী করেছিল। আর আজকের ইসলাম সমাজের অন্যায় অশান্তি থেকে মুখ ফিরিয়ে স্বার্থপরের মত ব্যক্তিগত জীবন ও আমল নিয়ে ব্যস্ত থাকার শিক্ষা দিচ্ছে। তারা তাদের লিফলেটে দাবী করছে যদি মানুষের সামনে ইসলামের প্রকৃত শিক্ষা তুলে ধরা যায়, ধর্ম অধর্মের পার্থক্য তুলে ধরা যায় তাহলে স্বার্থানেষী ও জঙ্গিবাদীরা যেমন তাদের ভুল বুঝতে পেরে জেহাদের নামে সন্ত্রাস করার নৈতিক শক্তি হারাবে, তেমনি নতুন করেও কাউকে আর জঙ্গিবাদের দিকে নিয়ে যেতে পারবে না। ঐক্য অনৈক্যের উপরে বিজয়ী হয় এটা প্রাকৃতিক নিয়ম দাবী করে তারা এমামুয যামান জনাব মোহাম্মদ বায়াজীদ খাঁন পন্নি কর্তৃক প্রতিষ্ঠিত আন্দোলন হেযবুত তওহীদের মাধ্যমে ষোল কোটি মানুষকে সকল ন্যায়ের পক্ষে সত্যের পক্ষে সকল অন্যায়ের বিরুদ্ধে অসত্যের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ গড়ে তোলার আহবান জানিয়ে তারা দাবী করেন আমরা যদি সত্যিকার অর্থেই অতীতের বিভেদ ভুলে দল মত ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে স্বার্থপরতা ও আতœকেন্দ্রীকতা পরিহার করে ঐক্যবদ্ধ হতে পারি তাহলে এই সন্ত্রাস জঙ্গিবাদ থেকে আমাদের প্রিয় ধর্ম ইসলাম যেমন রক্ষা পাবে তেমনি জাতিও রক্ষা পাবে দেশও রক্ষা পাবে।

No comments: